anuradha1311

Smile! You’re at the best WordPress.com site ever

Archive for the month “সেপ্টেম্বর, 2014”

মনের ভিতর

মনের মধ্যে কতরকম ছবির দৃশ্য ভেসে ওঠে-
একের পর এক দৃশ্য তাই তার নাম চলচ্চিত্র
কখনও সৃষ্টি করে মনের গভীরে দীর্ঘ ক্ষতচিহ্ণ
কভু বা আনন্দের রেশ, বাহারী রং বেরং কত বিচিত্র ।

এই আলো আঁধারির মাঝে বিদ্যুতের মত উজ্জ্বল
অতি তীক্ষ্ণ সেই মহান অবতারের প্রবেশ –
উদ্বেলিত হৃদয়ে ধ্বনিত হয় মন্দ্রগম্ভীর ‘ওম’ ধ্বনি
ধীরে ধীরে হারিয়ে যায় গভীর তমসা, অতন্দ্র আবেশ ।

কত সহজ স্বচ্ছ চিন্তাধারা, কি সুন্দর প্রকাশ-
অতি অনায়াসে বেরিয়ে এসে আঘ্রাণ করি সেই চিন্তা
নিজের ভেতর থেকে বেরিয়ে বাইরে এসে দাঁড়াই
ভুলে যাই নিজেকে, মিশে যাই, কেটে যায় দিনটা ।

মানুষ সত্য, নেই তার কোনো বর্ণ বিভেদ, জাত পাত
মনে হয় সকলের উপর মানুষ সত্য তাহার উপরে নাই
তবু কেন মোরা পারি না এই নির্দেশ করতে পালন
নিজের মধ্যে ঘুরে বেড়াই, নিরন্তর নিজেকে হারাই ।

আমি সেই পরমব্রহ্মর অংশ, আমার মধ্যে তিনি বিরাজমান
তাই যেন মনে থাকে সর্বদা, ব্রহ্মকে প্রত্যক্ষ করি তোমাতে
মধুর ব্যবহার, সততা, হাসি ভরিয়ে রাখে মোর অন্তঃস্থল
কি অনিশ্চিত এই শরীর, যেন পদ্মপাতায় জল ॥

অনুরাধা গুপ্তা
ব্যাঙ্গালোর 13/6/14

চলবে না

চলবে না চলবে না , এই সরকার চলবে না –
চটিপুলিশ, গেঞ্জিপুলিশ এদের গুঁতো চলবে না –
নন্দীগ্রামের মাটির ওপর হার্মাদের লাঠি চলবে না –
মা মাটি মানুষের সরকার আসবে এবার, পুঁজিবাদী চলবে না ।

এই সরকার পরিবর্তন মানে, হিংসা কভু নয় গো নয়-
বদল হবে বদলা নাকো – ভুলেও কভু দাঙ্গা নয়-
ছাত্র যৌবন দেশের ভবিষ্যৎ, তাদের ভুলেও পিটুনি নয়-
যাদবপুরে আঁধার রাতে পুলিশ মারে, তাও কি হয় ?

চটিপুলিশ, গেঞ্জিপুলিশ আবার এলো কেমন করে ?
কেমন করে মদ্দ পুলিশ ছাত্রীদের নিগ্রহ করে ?
কেমন করে পুরনো দিন ফিরে এসে দাঙ্গা করে ?
কেমন করে নতুন আলো হারিয়ে গেল , ভাবতে লজ্জা করে ।

এখনো সময় আছে, হে কাণ্ডারী, শক্ত হাতে নৌকা ধর-
এখনো সময় আছে, দুষ্ট ব্রণ নষ্ট কর –
এখনো সময় আছে – ছাত্র যৌবন রেয়াত কর –
এখনো সময় আছে – রাজনীতি পরিচ্ছন্ন কর ॥

অনুরাধা গুপ্তা
ব্যাঙ্গালোর 20/9/14

শিক্ষা

আজি শিক্ষা দিবসে জানাই তোমারে মোর সশ্রদ্ধ প্রণাম –
জন্মদাত্রী জননী আমার – করে চলেছ আশীর্বাদ অবিরাম –
প্রণমি তোমারে ধরিত্রী, মাগো দিয়েছ আলো হাওয়া বায়ু জল-
শিখায়েছ ধৈর্য , স্থৈর্য্য, হতে সর্ব্বংসহা ত্যাজি যত হলাহল ।
দিয়েছ মোরে শিক্ষা মোর যত গুরু বিদ্যা করেছ দান-
কেহবা কেটেছে গভীর চিহ্ন, অন্তরে রয়ে গেছে এক স্থান-
মানুষের সাথে মেলামেশা মোরে দিয়েছে কত যে শিক্ষা –
সন্তানরাও কভুবা আমাকে দিয়েছে বহুতর প্রশিক্ষা-
আর শেষ জীবনে সার্থক করে মা এসেছ দীক্ষা গুরু রূপে-
ধন্য আমি গুরুকৃপায় আজি পদপ্রান্তে বোঝাই তোমায় কিরূপে
প্রণমি তোমায় জগজ্জননী– নতমস্তকে মাগি আশীষ তব-
অমৃতপুরীতে যেন হেরি তোমারে নানারূপে নিত্য নব নব ॥

অনুরাধা গুপ্তা
ব্যাঙ্গালোর 5/9/14

Post Navigation