anuradha1311

Smile! You’re at the best WordPress.com site ever

ফিশ ফ্রাই

নীল আকাশের রং তখন বুঝি কালোই থাকে
পাখীদের কলকাকলী তখন ও শুরু হয় না
দ্রুতপায়ে গায়ে গামছাটা জড়িয়ে নেয় খাঁদু,
নাঃ , হাড়কাঁপানো শীত এই কানিতে শানায় না ।

দূর থেকে একে একে ডিঙিগুলি আসে
হৈ হৈ করে লাফিয়ে নামে সব মাল্লার দল ,
ঘুমন্ত পৃথিবীর একটি কোণে হঠাৎ জেগে ওঠে
কোলাহল, গুঞ্জন – তোলপাড় লেগে যায় ।

দেখতে দেখতে আকাশটা হয়ে ওঠে লালে লাল ,
তার চেয়ে বেশী ঝিলিক দেয় জালে ধরা মাছগুলি
রূপালী, ছাই ছাই, মেঘের রংএর মত
বিদ্যুৎ খেলে যায় সব চোখে মুখে ।

ছুটে যায় খাঁদু, উদ্ভ্রান্ত চোখে তাকায় আশে পাশে
আড়তদারদের মাথায় তখন অঙ্কের জোয়ার –
আজ কি বিয়ের লগন ? কিম্বা অন্য কোন পরব ?
কত বেশী লাভ ? কত দামে ছাড়া যায় ?

কি চাই, বাবুরা ? সবই জ্যান্ত, এখন ও লাফায়
কেমন করে কাটতে হবে শুধু বলেই খালাস –
পৌঁছে দেবে বাড়ীতে খাঁদু – যার যেমন খুশী
বড় বড় পেটি, গাদা , কিম্বা ফ্রাই এর ফিলে ?

ঠাণ্ডায় হাতগুলি জমে যায়, কেঁপে ওঠে বুক
কাঁপুনি ছড়িয়ে পড়ে ঠাণ্ডা শরীরে
একটু যদি হাত দুটো সেঁকত খাঁদু
হয়ত আরো মিহি হ’ত হাতের জাদু !

সারা গায়ে রূপোলী আঁশের ছোঁয়া
রক্তাক্ত জামা ও গায়ের গামছাখানি
এক ভাঁড় চা দিয়ে যায় দোকানি –
আঃ , রোদে বসে আরাম করে খায় খাঁদু ।

জুড়িয়ে যায় শরীর – ক্লান্তির হয় শেষ
রোমে রোমে ছড়িয়ে পড়ে অসীম উষ্ণতা
ধীরে ধীরে ভাবে খাঁদু – ফ্রাইগুলি খাবার মজা
বাবুদের শরীরে কি দিতে পারে এই প্রসন্নতা ?

অনুরাধা গুপ্তা
রূপনারায়নপুর
১৯৯৭ সালে কোন দুপুরে

Advertisements

Single Post Navigation

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: